Life Reality of “Tokyo Story” Movie

Movie_Name: Tokyo Story(1953)

Industry: Japanese

Director: Yasujirō Ozu

Genre: Drama

IMDB_Rating: 8.2/10

Tomatometer: 100%

Runtime: 2h 16min

Personal_Rating: 9/10

Spoiler_Alert

বিশেষ_বিজ্ঞপ্তি: আমার মতে, আমাদের সমাজে প্রত্যেক বাবা-মাকে অন্তত একবার হলেও মুভিটা দেখা উচিত।

এটা কোনো মুভি রিভিউ না। মুভিটার সংগে জীবনের বাস্তবতা নিয়ে কিছু কথা।

প্রায় সব বাবা-মায়েদেরই নিজের সন্তানকে নিয়ে কিছু না কিছু প্রত্যাশা থাকে। কিন্তু সন্তান যখন সবকিছু বুঝতে শেখে, সিদ্ধান্ত নেয়ার ক্ষমতা জন্মে; তখন সন্তান অনেক সময়ই জীবনে এমন কিছু করতে চায়, যা তার পিতা-মাতার প্রত্যাশার সঙ্গে সাদৃশ্যমান হয় না। কিন্তু অনেক বাবা-মা সেই সন্তানের সিদ্ধান্তের যথার্থতা বা নীতিগত দিক বিবেচনা না করেই সেটাকে নেতিবাচক দৃষ্টিতে দেখা শুরু করেন। ফলে অনেক সময় অনিচ্ছা সত্ত্বেও বাবা-মায়ের সেই প্রত্যাশা পূরণের পথে নামতে গিয়ে বহু সন্তান তা পূরণে ব্যর্থ হয়। ফলস্বরূপ সেই সন্তান হয়ে ওঠে তার পিতার চোখের বিষ, মাতার গর্ভের কলংক। কিন্তু বাস্তবিকভাবে বলতে গেলে মানুষের জীবন খুবই ছোট। এই ছোট্ট জীবনে যদি কেউ ন্যায়ের পথে অটল থাকতে পারে, সেটাই তার কৃতিত্ব। আর এই পৃথিবীটা এতই অদ্ভূত যে আমরা যা প্রত্যাশা করি, বেশিরভাগ সময়ই ভালো হোক বা খারাপ হোক, সম্পূর্ণ ভিন্ন কিছু ঘটে থাকে। এখানে “জীবন” জিনিসটা সবসময় নিজের, কেউ ন্যায়ের পথে, ধর্মের পথে থেকে জীবন যেভাবেই অতিবাহিত করতে চাক না কেন, তাতে কারোরই কোনো ক্ষতি নেই। আর এতে কারো মান-সম্মান হারানোরও কোনো ব্যাপার নেই। অনেক সময়ই বাবা-মা তাদের কোনো এক সন্তানের প্রতি ভুল ধারণা নিয়ে বেঁচে থাকেন৷ কিন্তু শেষ পর্যন্ত দেখা যায় সেই সন্তানটিই তাকে সবচেয়ে বেশি ভালোবাসত, তার সবচেয়ে কাছের মানুষ ছিল!!

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s

Create your website with WordPress.com
Get started
%d bloggers like this: